মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

বিরামপুর উপজেলার পটভূমি

        দিনাজপুর জেলা সদর হতে ৫৬ কিঃ মিঃ দক্ষিণ কোণে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী, নবাবগঞ্জ, হাকিমপুর, ঘোড়াঘাট উপজেলার মধ্যে যমুনা নদী থেকে উদ্ভুত শাখা নদীর কোল ঘেঁষে গড়ে উঠেছে বিরামপুর। বিরামপুর থানা সৃষ্টির পূর্বে হাকিমপুর, নবাবগঞ্জ ও ফুলবাড়ী থানার সমন্বয়ে এ অঞ্চল পরিচালিত হত। কালের বিবর্তনে সু-দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় পরবর্তীতে সৃষ্টি হয় বিরামপুর। কথিত আছে সম্রাট আকবরের সময় বারো ভুঁইয়াদের মধ্যে পাতরদাস নামে এক শক্তিশালী রাজা ছিলেন। তাঁর রাজধানী ছিল অত্র এলাকায় রাজা পাতরদাসের সাথে মোঘল বাহিনীর যুদ্ধ হয়। এ যুদ্ধে পাতরদাস মোঘল বাহিনীর সেনাপতি বৈরাম খাঁর নিকট পরাজয় বরণ করে। অত:পর বৈরাম খাঁ পাতরদাসের দূর্গ দখল করে এবং বসতি গড়ে তোলেন। জনশ্রুতি রয়েছে যে, সেনাপতি বৈরাম খাঁর নামেই এই এলাকার নাম করণ করা হয়েছে বিরামপুর।

        নবাবগঞ্জ ও হাকিমপুর থানার ২টি করে ও ফুলবাড়ী থানার ৩টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে বিরামপুর থানা গঠিত হয় ১৯৮১ সালের ৭ জুন । অতঃপর ১৪ সেপ্টেম্বর ১৯৮৩ সালে বিরামপুর থানাকে ‘‘উন্নিত’’ করে উপজেলাতে পরিনত করা হয়। মুকুন্দপুর, কাটলা, খানপুর, দিওড়, বিনাইল, জোতবাণী, পলিপ্রায়াগপুর সহ ৭টি ইউনিয়নের সমন্বয়ে বিরামপুর থানা প্রতিষ্ঠিত। পরবর্তীতে উক্ত থানাকে উপজেলায় উন্নিত করার পর ১৯৯০ ইং সালে বিরামপুর থানাকে পৌরসভা ঘোষণা করা হয়। ১৫ জুন ১৯৯৫ সাল হতে বিরামপুর  পৌরসভার কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে বিরামপুর পৌরসভাটি প্রথম শ্রেণীর পৌরসভা হিসাবে পরিচালিত হয়ে আসছে। বিরামপুর উপজেলার প্রশাসনিক আয়তন ২১২ বর্গ কিঃমিঃ।