মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধার তালিকা

১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে বিরামপুর  উপজেলার  রয়েছে এক গৌরবগাঁথা ইতিহাস । তৎকালীন ৭নং সেক্টরের মেজর নাজমুল হুদা ও মেজর নুরুজ্জমানের নেতৃত্বে কালিয়াগঞ্জ তরঙ্গপুর সেক্টরে দেশ মাতৃকার টানে ২৮০ জন মুক্তিযোদ্ধা প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। অত:পর সু-দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধ করে বীর মুক্তিযোদ্ধারা বিরামপুর বাসীকে সাথে নিয়ে ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর পাকহানাদার বাহিনীর কবল থেকে বিরামপুরকে শত্রুমুক্ত করেন। এতে অত্র উপজেলায় ২০ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হন। পুঙ্গ হন ০২জন, এবং যুদ্ধে মারাত্মকভাবে  আহত হন ১৩ জন মুক্তিযোদ্ধা। বিরামপুরের গোহাটি কুয়া, ঘাটপাড় ব্রীজ, ২নং রাইচ মিলের কুয়া, ওভার শিয়ার বাগান বাড়ী, ৪নং রাইচ মিল কুয়া বদ্ধভুমি হিসেবে পরিচিত।  যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে পাকহানাদার বাহিনী গণহত্যা করে শহীদদের লাশ এই সব বদ্ধভুমিতে পুতে রাখে। উলেস্নখ্য যে, বিরামপুরের কেটরা হাট নামক স্থানে ১৯৭১ সালে মুক্তিযোদ্ধা ও পাকসেনাদের যুদ্ধে ৭ জন পাকসেনা ১৬ জন মুক্তিযোদ্ধা মারা যাওয়ার পর উক্ত অঞ্চলটি হানাদার মুক্ত হয়।

সংযুক্তি

 তালিকা.doc তালিকা.doc



Share with :

Facebook Twitter